দক্ষিণ আফ্রিকার সিদ্ধান্তে বিস্মিত আফ্রিদি

এ মুহূর্তে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে রয়েছে পাকিস্তান। ইতোমধ্যে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে জিতেছে পাকিস্তান।

আগামী ১০ এপ্রিল থেকে শুরু হবে চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

কিন্তু সিরিজ শুরু হওয়ার আগেই ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) সুযোগ পাওয়া খেলোয়াড়দের ছেড়ে দিয়েছে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা (সিএসএ)। 

সিএসএর এমন সিদ্ধান্তে যারপরনাই বিস্মিত পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি।

সিরিজের মাঝেই খেলোয়াড়দের এভাবে আফ্রিকার বোর্ড কোন যুক্তিতে ছেড়ে দেয়, সে প্রশ্ন তুলেছেন বুমবুম আফ্রিদি।

এ বিষয়ে সিএসএর যুক্তি— ভারতে আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতির পরিকল্পনার ভিত্তিতে জাতীয় দলের খেলার চেয়ে আইপিএলকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন তারা। 

যে কারণে আইপিএল খেলার উদ্দেশে উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি কক, পেসার কাগিসো রাবাদা, অ্যানরিখ নর্তে, পেসার লুঙ্গি এনগিদি ও ডেভিড মিলারের মতো দলটির সেরা তারকা প্রথম দুই ওয়ানডে ম্যাচ খেলেই ভারতে পাড়ি জমিয়েছেন। 

এমন যুক্তি হাস্যকরই লেগেছে আফ্রিদির কাছে। 

পাকিস্তানের এই সাবেক অধিনায়কের মতে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ওপরে টি-টোয়েন্টি ফ্রাঞ্চাইজি লিগগুলোর আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ভেবে দেখার সময় এসেছে।

এ বিষয়ে আফ্রিদি বলেন, ‘একটা সিরিজের মাঝপথেই ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা তাদের খেলোয়াড়দের আইপিএল খেলতে যাওয়ার অনুমতি দিল দেখে অবাক হয়ে গেলাম। টি-টোয়েন্টি লিগ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এতোটা প্রভাব ফেলছে।  এটা খুবই দুঃখজনক ও দুশ্চিন্তার।  বিষয়টি আবারও ভেবে দেখা দরকার।’

বুধবার প্রোটিয়াদের বিপক্ষে পাকিস্তানের ওয়ানডে সিরিজ জয়ের প্রতিক্রিয়ায় আফ্রিদি বলেন, ‘এই সিরিজ জয়ের জন্য সবাইকে অভিনন্দন। জোহানেসবার্গে ফখরের আরেকটি সেঞ্চুরি দেখে খুবই ভালো লেগেছে। বাবর আবারও তার দারুণ পারফরম ফিরে পেয়েছে। বোলাররাও তো দুর্দান্ত বল করছে সেখানে।  সব মিলিয়ে খুব ভালো লাগছে।  পাকিস্তান ভালো খেলেছে।’