অভিনেত্রী মুনমুনের ভয়ঙ্কর স্মৃতি

এবার যৌন হয়রানি নিয়ে সরব হয়েছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের অভিনেত্রী মুনমুন দত্ত। আবেগঘন চিঠিতে অনেক কথাই প্রকাশ্যে এনেছেন তিনি ।  জানিয়েছেন কাছের মানুষদের কাছেই বারবার যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন তিনি। এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে জিনিউজ।

মুনমুন দত্ত লিখেছেন, কাছের মানুষদের কাছেই বারবার যৌন হয়রানির শিকার হতে হয়েছে তাকে। অভিযোগ, এক টিউশন শিক্ষক তার অন্তর্বাসের ভিতর দিয়ে যৌনাঙ্গ স্পর্শ করেছিলেন।  

অভিনেত্রী মুনমুন বলেন, স্কুলে যে শিক্ষককে তিনি রাখি পরিয়েছিলেন, তিনিই তার ব্রা-স্ট্র্যাপ টেনে স্তনে থাপ্পড় মেরেছিলেন।  যৌন হয়রানির ঘটনা এভাবে লিখতে লিখতে তাঁর চোখে জল আসছে। লিখেছেন, যে পাশের বাড়ির কাকার দৃষ্টিতে তিনি ভয় পেতেন, সেই কাকাই তার শরীরে একাধিকবার স্পর্শ করেছে। একথা যাতে কাউকে না জানানো হয়, সেই হুমকিও তাকে দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও লিখেছেন, বয়সে অনেক বড় ভাই, যিনি তাকে জন্মের সময় দেখতে এসেছিলেন, তিনিই পরবর্তীকালে শরীর ছোঁয়াটা নিজের অধিকার বলে মনে করেছিলেন। তিনি বুঝতে পারতেন না এই কথাগুলো কীভাবে বাবা-মাকে জানাবেন।  কথাগুলো বলতে গিয়ে অস্বস্তিতে পড়তেন তিনি।
 
মুনমুন দত্তের কথায়, এই ভয়ঙ্কর স্মৃতিগুলি কাটিয়ে উঠতে তার বহু বছর সময় লেগেছে। এই ঘটনাগুলি তার মনে পুরুষদের প্রতি ঘৃণা তৈরি করেছিল।

২০১৮ সালে বলিউডে #MeToo নিয়ে সরব হয়েছিলেন তনুশ্রী দত্ত।  নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনে বিনোদনপাড়ায় হইচই ফেলে দেন।  এরপর একের পর এক অনেকেই মুখ খোলেন।