লকডাউনের বিরুদ্ধে নিউমার্কেট এলাকায় ফের বিক্ষোভ

লকডাউন প্রত্যাহারের দাবিতে রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় দ্বিতীয় দিনের মতো বিক্ষোভ করছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। 

লকডাউনের প্রথম দিন সোমবার সকালে নিউমার্কেটের সামনে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। 

এর আগে গতকাল রোববার দুপুরের পর অবিলম্বে লকডাউন প্রত্যাহার দাবিতে ব্যবসায়ীরা মিছিল বের করেন। তারই ধারাবাহিকতায় আজ সকালেও রাস্তায় নামেন তারা।

গাউছিয়া, নুর ম্যানশন, চাঁদনী চক মার্কেটের হাজার হাজার দোকান মালিক এবং কর্মচারীরা সকাল সাড়ে ১০ টায় মিছিল নিয়ে রাস্তায় বের হলে গাউছিয়া মার্কেটের মোড়ে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে।

এ সময় তারা অবিলম্বে লকডাউন প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে ‘লকডাউন মানি না’, ‘দোকানপাট খুলবো’ ইত্যাদি স্লোগান দিতে থাকেন।  

ব্যবসায়ীরা বলেন, আমরা কোনো লকডাউন চাই না। এটাই আমাদের এক দফা দাবি। কারণ আমাদের পরিবার আমাদের আয়ের ওপর নির্ভর করে। দোকান বন্ধ থাকলে আমরা সংসার চালাবো কীভাবে?

নিউমার্কেটের ব্যবসায়ী শাহীন মিয়া যুগান্তরকে বলেন, আমাদের দাবি শুধু একটাই- লকডাউনের বিধিনিষেধ যতই থাকুক, আমরা স্বাস্থ্যবিধি  মেনে চলতে আগ্রহী। আমাদের দোকানপাট বন্ধ থাকলে রুটি-রুজিও বন্ধ হয়ে যাবে। সামনে ঈদ, তবে সেটা বড় কথা নয়, আমাদের খেয়ে বাঁচতে হবে সেই বাঁচার অধিকার চাই। 

আরেক ব্যবসায়ী বলেন, গত রমজানেও লকডাউনের কারণে আমাদের ব্যবসা বন্ধ ছিল। এই সময়ে আমরা আমাদের কর্মচারীদের বেতন দিই। কিন্তু এখন ব্যবসা বন্ধ থাকলে তাদের বেতন কোথা থেকে দেব।

অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে নিউমার্কেট থানা পুলিশ।

ডিএমপির নিউমার্কেট অঞ্চলের এডিসি ইহসানুল ফেরদৌস জানান, ব্যবসায়ী ও দোকান মালিকদের প্রতিনিধির সঙ্গে কথা বলে বোঝানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক আছে।

এর আগে গত শনিবার রোজা ও ঈদ সামনে রেখে লকডাউনের এক সপ্তাহ ৪ ঘণ্টার জন্য দোকান খোলা রাখার দাবি জানায় বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি।

প্রসঙ্গত, দেশে করোনার ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ রোধে আগামী এক সপ্তাহের জন্য লকডাউনের ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার।